1. admin@banglahdtv.com : Bangla HD TV :
শনিবার, ০৬ মার্চ ২০২১, ১০:৫৩ অপরাহ্ন

জমির নামজারিতে ভূমি অফিসে আবেদনের প্রয়োজন হবে না

Coder Boss
  • Update Time : সোমবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৪০ Time View
দলিল বুনিয়াদে নামজারি ব্যবস্থা চালু হতে যাচ্ছে সরকার।

এসিল্যান্ড অফিসে জমির নামজারি করতে গিয়ে প্রতিনিয়ত মানুষ ভোগান্তিতে পড়ছেন। এজন্য ভোগান্তি কমাতে শিগগিরই দলিল বুনিয়াদে নামজারি ব্যবস্থা চালু হতে যাচ্ছে সরকার।

দলিল বুনিয়াদে নামজারি ব্যবস্থা চালু হলে ভূমি নিবন্ধন অফিসে (এসিল্যান্ড) ক্রয়কৃত কিংবা হস্তান্তরিত জমির নামজারির জন্য আবেদনের প্রয়োজন হবে না। প্রাথমিকভাবে সাভার উপজেলায় এ ব্যবস্থা চালু করার নির্দেশনা দেওয়া হয়।

ভূমি ক্রয়-বিক্রয় কিংবা হস্তান্তরের পর ভূমির নিবন্ধন (রেজিস্ট্রেশন) ও নামজারির (মিউটেশন) সমন্বয় সাধনের লক্ষ্যে গত ৯ নভেম্বর অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভা বৈঠকে ভূমি মন্ত্রণালয় কর্তৃক উপস্থাপিত প্রস্তাবটি আরও কিছু নির্দেশনাসহ মন্ত্রিসভায় অনুমোদন প্রদান করা হয়।

আজ সোমবার (১৪ ডিসেম্বর) ভূমি মন্ত্রণালয় এ সম্পর্কে মাঠ পর্যায়ের ভূমি অফিসের করণীয় বিষয়ক এক দিকনির্দেশনামূলক পরিপত্রে জারি করেছে।

পরিপত্রে বলা আছে, ই-নামজারির আবেদনের মতো প্রাপ্ত দলিলের কপি এবং এলটি নোটিশ একত্রিত করে সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্তৃক স্বয়ংক্রিয়ভাবে ই-নামজারির জন্য মিস কেস রুজু করতে হবে। এ ক্ষেত্রে দলিল গ্রহীতার থেকে আলাদা করে আবেদন গ্রহণের আবশ্যকতা নেই।

এতে আরও বলা আছে, নামজারি/ই-নামজারি খতিয়ানের ভিত্তিতে জমির দলিল রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হলে এবং এর ভিত্তিতে মালিকানা পরিবর্তন হলে সেক্ষেত্রে উপযুক্ত বিধান প্রযোজ্য হবে। এ ক্ষেত্রে বর্তমানে সাধারণভাবে প্রচলিত পদ্ধতি অনুসরণ করার প্রয়োজন হবে না। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন/পৌর ভূমি অফিস, সার্ভেয়ার/কানুনগো কর্তৃক সরেজমিন তদন্তের আবশ্যকতা নেই মর্মে নির্দেশনাও আছে পরিপত্রে।

পরিপত্রে বলা আছে, জমি হস্তান্তর দলিল রেজিস্ট্রেশন করার সময় সাব-রেজিস্ট্রার তিন কপি দলিল সম্পাদন করবেন। তম্মধ্যে একটি কপি দলিল গ্রহীতা পাবেন, দ্বিতীয় কপি সাব-রেজিস্ট্রি অফিস সংরক্ষণ করবে এবং তৃতীয় কপি ও এলটি নোটিশের একটি পরিচ্ছন্ন ও পাঠযোগ্য কপি সাব-রেজিস্ট্রার সংশ্লিষ্ট উপজেলা/সার্কেল ভূমি অফিসে প্রেরণ করবেন।

দলিলের কপি ও এলটি নোটিশের কপি ভূমি অফিসে পৌঁছাবার পর প্রচলিত বিধান অনুযায়ী নামজারির ফি ও সার্ভিস চার্জ পরিশোধ করা এবং দলিল অবিকল নকল কপিসহ উপস্থিত হয়ে শুনানি গ্রহণের লক্ষ্যে সর্বোচ্চ চার কার্যদিবসের মধ্যে সময় দিয়ে দলিল গ্রহীতাকে ই-মেইল/মেসেজ দিতে হবে। এছাড়া, দলিলের কপি এবং এলটি নোটিশ সহকারী কমিশনার (ভূমি)-এর নিকট পৌঁছানোর তারিখ হতে পরবর্তী আট কার্যদিবসের মধ্যে নামজারি সম্পন্ন নিশ্চিত করার কথা বলা আছে পরিপত্রে।

ডিজিটাল সিস্টেমের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ ও সনদ যাচাইয়ে সহায়তার জন্য পত্র প্রেরণ ভূমি মন্ত্রণালয়ের চলমান ডিজিটাল/ইলেক্ট্রনিক সেবাসমূহের মধ্যে ই-নামজারি সিস্টেমের সঙ্গে এটুআই কর্তৃক পরিচালিত উত্তরাধিকার সনদ (যা চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনে চলমান) সিস্টেম দেশের সকল স্থানীয় সরকার কর্তৃপক্ষ কর্তৃক ব্যবহারের লক্ষ্যে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ে ভূমি মন্ত্রণালয় কর্তৃক আজ একটি পত্র প্রেরণ করা হয়।

ভূমি মন্ত্রণালয়ের চলমান ডিজিটাল/ইলেক্ট্রনিক সেবাসমূহের হ্যাকিং প্রতিরোধে ডিজিটাল সাইবার নিরাপত্তা রক্ষার কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ করে জননিরাপত্তা বিভাগ ও তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগে ভূমি মন্ত্রণালয় কর্তৃক আরেকটি পত্র প্রেরণ করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020 banglahdtv
Design & Develop BY Coder Boss